1. admin@gonopotrika.com : admin :
বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ১২:২৪ অপরাহ্ন

ভোলায় রোকেয়া বেগম নামে এক তরুণীর রহস্যজনক মৃত্যু

  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২৩
  • ১৮১ বার পঠিত

 

রাফসান জানি ভোলা জেলা প্রতিনিধি :

ভোলা সদর উপজেলার ৮নং আলীনগর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের আসাদুল মেম্বার বাড়িতে রোকেয়া বেগম (২০) নামের এক তরুণীর রহস্যজনক মৃত্যু হয় সোমবার (২৩ অক্টোবর) রাত ৮:৩০ মিঃ সময়। ”রোকেয়া” আলমগীর ও হালিমার দম্পতির দ্বিতীয় কন্যা।

রোকেয়ার বড় বোনের বিয়ের অনুষ্ঠান চলাকালীন সময়, পরিবারের সকলে বিয়ে নিয়ে যখন ব্যস্ত।বিশেষ প্রয়োজনে রোকেয়াকে খুঁজছে পরিবার তার রুমের দরজা বন্ধ দেখে জালায় দিয়ে তাকালে দেখা যায় বৈদ্যুতিক পাখার সাথে ঝুলে আছে সে। দরজা ভেঙে ভিতরে ঢুকে নিচে নামিয়ে আনে তাকে। ভোলা ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসলে জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, রোকেয়ার রায়হান নামের এক বিবাহিত ছেলের সাথে প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে।রায়হান একই ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের মৌলভী বাড়ির মাইনুদ্দিনের ছেলে।

রায়হানের সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করলে রায়হান জানান, আমি একজন বিবাহিত ছেলে , আমার স্ত্রী অন্তঃসত্ত্বা। রোকেয়া আমাকে পছন্দ করত প্রেমের প্রস্তাব দিয়েছিল। আমি রোকেয়াকে বুঝিয়ে বলেছি আমি একজন বিবাহিত ছেলে আমার স্ত্রী আছে, সেহেতু তোমার সাথে প্রেম ভালোবাসা হয় না। এ সমস্ত কথা হয়েছিল কিছুদিন পূর্বে রোকেয়ার সাথে।

রোকেয়ার মা হালিমার কাছে মৃত্যুর জন্য কাউকে অভিযুক্ত করেছেন কিনা জানতে চাইলে সে গণমাধ্যম কর্মীদের কে জানান, আল্লাহ আমার মেয়ের মৃত্যু রেখেছে এইভাবে, ওর হায়াত বেশি রাখেনি, তাই ওর মৃত্যুতে আমরা কাউকে অভিযুক্ত করছি না, কারো প্রতি কোন অভিযোগ নেই আমাদের।

কিন্তু প্রশ্ন থেকেই যায় কি এমন ঘটেছিল বড় বোনের বিয়ের দিন, আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে হলো রোকেয়ার, তাও আবার চিরকুট লিখে.? চিরকুটে যেমনটি লেখা ছিল ” নিজের জন্য নিজেই শেষ হলাম, কেউ দায়ী না আমার এই কাজে। সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন। আল্লাহ হাফেজ ”

ময়না তদন্তের জন্য লাশ ভোলা ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়।

ভোলা সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিন ফকির জানান, পরিবার থেকে কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে, মামলা নম্বর ১০৭। মঙ্গলবার (২৪ অক্টোবর) দুপুর ২:৩০ মিঃ সময়, ময়না তদন্ত (পোস্টমর্টেম) শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। ময়নাতদন্তের (পোস্টমর্টেম) রিপোর্ট আসার পরে আসল রহস্য খুঁজে পাওয়া যাবে। এবং আমাদের তদন্ত অব্যাহত রয়েছে।

Facebook Comments Box
এ জাতীয় আরও খবর
© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২৩ গণ পত্রিকা
Theme Customized By Shakil IT Park