1. admin@gonopotrika.com : admin :
সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৩:০২ পূর্বাহ্ন

সীতাকুণ্ড গুলিয়াখালী পর্যটক কেন্দ্রে গাড়ি পার্কিং উদ্বোধন

  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২৪
  • ৮৬ বার পঠিত

ইকবাল হোসেন রুবেল, সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি :

সীতাকুণ্ডের প্রকৃৃতির অপরুপ সৌন্দর্যে ভরপুর গুলিয়াখালী সমুদ্র সৈকতে পর্যটকদের সুবিধার্তে উপজেলা প্রশাসন ও ইপসা’র উদ্যোগে দৃষ্টিনন্দন গাড়ি পাকিংয়ের উদ্বোধন করেছেন সীতাকুণ্ড উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, গুলিয়াখালী সমুদ্র সৈকত ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি কে.এম রফিকুল ইসলাম।

বুধবার (১৭ জানুয়ারি) চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড উপজেলার মুরাদপুর ইউনিয়নের আওতাধীন গুলিয়াখালী সমুদ্র সৈকত এলাকায় প্রথম দৃষ্টিনন্দন একটি গাড়ি পার্কি উদ্বোধন করেন। সাংবাদিক মোঃ হাকিম মোল্লার সার্বিক পরিচালনায় উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সীতাকুণ্ড মডেল থানার অফিসার ইন ইনচার্জ (ওসি) মোঃ কামাল উদ্দিন পিপিএম, মুরাদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও গুলিয়াখালী সমুদ্র সৈকত ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য সচিব এস.এম রেজাউল করিম বাহার, সীতাকুণ্ড প্রেস ক্লাবের সহ সভাপতি জহিরুল ইসলাম।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, গ্রিন বেঙ্গল প্রজেক্ট’র প্রফেসর পলরাজ মোসাই সেলভাকুমার, ইপসা প্রোপ্রাম ম্যানেজার নেওয়াজ মাহমুদ, গ্রিন বেঙ্গল প্রজেক্ট’র ম্যানেজার নুজাবা তাসান্নুম, ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বার ও গুলিয়াখালী সমুদ্র সৈকত ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য মোঃ নুরুল আমীন সফিক, সদস্য মোঃ মফিজুর রহমান, গৌতম, মোঃ আবুল কালাম, সৈকত চন্দ্র পাল, হাসান ট্রেডার্সের সত্বাধিকারী মোঃ আবু তাহের প্রমুখ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বলেন, বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের পর্যটন-২ অধিশাখা এর গুলিয়াখালী সমুদ্র সৈকতকে পর্যটন সংরক্ষিত এলাকা হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। উক্ত পর্যটন সংরক্ষিত এলাকার আইন শৃঙ্খলা রক্ষা, সমুদ্র সৈকত এলাকার শৃঙ্খলা রক্ষা, পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা, পার্কিং, পরিবহণ, দোকানপাট বিষয়ে ভূমিকা রাখছে গুলিয়াখালী সমুদ্র সৈকত ব্যবস্থাপনা কমিটি। পাশাপাশি স্থায়ীত্বশীল উন্নয়নের জন্য সংগঠন ইপসা ইকোট্যুরিজম প্রজেক্টের মাধ্যমে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। তারই ধারা বাহিকতায় দৃষ্টি নন্দন গাড়ি পাকিং উদ্বোধন করা হয়। এতে সীতাকুÐ উপজেলা প্রশাসনের সার্বিক সহযোগিতার পাশাপাশি জনপ্রতিনিধি সহ স্থানীয় সুধীমহলের সহযোগিতা কামনা করি। পর্যটকদের জন্য এসব সুবিধা প্রদাণ করা হলে এ অঞ্চলের অনেক বেকার যুবকরা উপার্জন করার সুযোগ পাবে। এলাকার অর্থনৈতিক উন্নয়ন হবে, জীবনমানের পরিবর্তন ঘটবে। পরিবেশবান্ধব গুলিয়াখালীর এই পর্যটন শিল্প জাতীয় অর্থনীতিতে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে। সরকারি কোষাগারে রাজস্ব আদায় বৃদ্ধি পাবে।

উদ্বোধন শেষে প্রধান অতিথি গুলিয়াখালী ঘাটের দক্ষিণে একটি দৃষ্টিনন্দন কাঠের ব্রিজ নির্মাণের জন্য জায়গা নির্ধারন করেন। এসময় ইপসা ও গ্রিন বেঙ্গল প্রজেক্ট’র আওতায় গুলিয়াখালী সমুদ্র এলাকায় তালগাছ, কেউড়া, বাইন, গোলপাতা, সুন্দরী খেঁজুর গাছ রোপনের উদ্যোগকে প্রশংসা করেন।

Facebook Comments Box
এ জাতীয় আরও খবর
© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২৩ গণ পত্রিকা
Theme Customized By Shakil IT Park